প্রতিষ্ঠানের ইতিহাস

নেপোলিয়ন বলেছিলেন তোমরা আমাকে একটি শিক্ষিত মা দাও, আমি তোমাদের উপহার দেব শিক্ষিত জাতি । আর এই শিক্ষিত জাতি গড়ে তোলার উদ্দেশ্য নিয়েই গড়ে উঠেছে কাশীনাথপুর মহিলা ডিগ্রি কলেজ। পিছিয়ে পরা নারীদের শিক্ষার সুযোগ বৃদ্ধির জন্য দীর্ঘ দিন ধরেই কাশিনাথপুর ও এর আশেপাশের এলাকার মানুষের চাওয়া ছিল একটি মহিলা কলেজ। কারণ তখন পাবনা সদরে বা অন্য কোথাও হোস্টেলে রেখে মেয়েদের পড়ালেখা করানোর মত সুযোগ বা সামর্থ ছিলনা এলাকার দরিদ্র কৃষক বা শ্রমিকের। ফলে কলেজে পড়ার সুযোগ না পেয়ে ঝরে পরতো অধিকাংশ মেয়ে। আর তাইতো ২০০২ সালে পাবনা-২ আসনের সাবেক সংসদ সদস্যকে উপদেষ্টা ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রুহুল আমীনকে সভাপতি এবং এলাকার গণ্যমান্য বিদ্যোৎসাহী ব্যক্তিদের সদস্য করে যাত্রা শুরু করে এই কলেজটি। ২০০২ সনে রাজশাহী শিক্ষা বোর্ড কর্তৃক উচ্চ মাধ্যমিক স্তরের বিজ্ঞান, ব্যবসায় শিক্ষা ও মানবিক এই তিন বিভাগে ১৪ টি বিষয় খোলার অনুমতি প্রাপ্ত  হয়ে ৩০ জন ছাত্রী ও ৭ জন শিক্ষককে নিয়ে শুরু হয় কলেজের কার্যক্রম। প্রথম অধ্যক্ষ হিসেবে নিযুক্ত হন জনাব রোকসানা খানম। আর তার সুযোগ্য নেতৃত্বেই উত্তরোত্তর এগিয়ে চলছে এই কলেজটি। ২০০৪ সনের প্রথম পাবলিক পরীক্ষায় অংশ নেয় ১৬ জন যার মধ্যে কৃতকার্য হয় ৭ জন । ৩০ জন ছাত্রী নিয়ে যাত্রা শুরুর মাত্র দশ বছরের মধ্যে শিক্ষক, কর্মচারী, পরিচালনা পর্ষদ, অভিভাবক ও এলাকাবাসীসহ সকলের সহযোগিতায় আজ ছাত্রী হয়েছে ৭৮৪ জন। মাত্র ৭ জন শিক্ষক এর স্থলে আজ কর্মরত আছেন ২৯ জন শিক্ষক। ২০০৯ সালে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় হতে স্নাতক পর্যায় শুরু করার অনুমতি লাভ করে বি.এ. ও বি.এস.এস. শ্রেণীতে ২০০৯-২০১০ শিক্ষা বর্ষে ভর্তি করা হয়েছে ৫৪ জন শিক্ষার্থী। আমরা কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপণ করছি কলেজটির প্রতিষ্ঠাতা এ. কে. এম. সেলিম রেজা হাবিব সহ সকল ব্যক্তিবর্গের প্রতি যাদের অক্লান্ত পরিশ্রমে গড়ে উঠেছে কাশীনাথপুর মহিলা ডিগ্রি কলেজ।